বন্ধু
মানবতা ও উদারতা সফল যারা কেমন তারা

কেমন আছেন প্রধানমন্ত্রীর তিন মেয়ে

সর্বনাশা আগুনে সব হারানো তিন কন্যাকে নিজের মেয়ে করে নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০১০ সালের ৩রা জুন নিমতলী ট্র্যাজেডিতে স্বজনহারা আসমা আক্তার, সকিনা আক্তার রত্না ও উম্মে ফারেয়া রুনাকে নিজ কন্যার পরিচয়ে গণভবনে বিয়েও দেন প্রধানমন্ত্রী। সেই থেকে প্রধানমন্ত্রী তাদের মা। নিয়মিত খোঁজখবর রাখেন তিনি। সর্বশেষ মিরপুরে ১৫০০ বর্গফুটের ফ্ল্যাট উপহার দিয়ে তিন মেয়েকে চমকে দেন শেখ হাসিনা। তিন কন্যার কাছে এ উপহার ছিল অবিশ্বাস্য। দুই ঈদে তিন মেয়ে, মেয়ের জামাই, নাতি-নাতনিদের জন্য নতুন পোশাক, পহেলা বৈশাখে নতুন কাপড়, আম কাঁঠালের সময় নানা রকম মৌসুমী ফল, শীতের সময় শীতের পোশাক এসব তিন মেয়ের বাড়িতে নিয়মিত পাঠান। সন্তানের মতোই নিয়মিত খোঁজখবর রাখেন প্রধানমন্ত্রী।

ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে মেয়েদের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর অভিভাবকত্ব পেয়ে খুশি এই তিন কন্যা।

আসমা আক্তার বলেন, নিমতলীর ঘটনায় আমি আমার মাকে হারিয়েছি। এ ক্ষতি হয়তো কোনো দিন পূরণ হবে না। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর মাতৃ স্নেহে আমাদের মায়ের অভাব অনেকটাই পূরণ হয়েছে। আমাদের সন্তানরাও নানুর আদর পেয়েছে। এত স্বজন হারানোর কষ্ট নিয়ে আমার যেদিন বিয়ে হয় সেদিন আমি বুঝতে পারছিলাম না কি হচ্ছে? আস্তে আস্তে যখন স্বাভাবিক হতে থাকি তখন দেখি জীবনটা অনেক পাল্টে গেছে। যে প্রধানমন্ত্রীকে সামনে থেকে দেখবো এটা কোনো দিন চিন্তা করিনি, তাকে আজ আমি আম্মু বলে ডাকি। নিমতলী ট্র্যাজেডির এত বছর হয়ে গেছে তারপরও আম্মু আমাদের সবসময় খোঁজখবর নেন। আমার তিন ছেলে। আম্মু আমার বড় ছেলের নাম রেখেছেন রমাদান। বিয়ের সময় আম্মু আমার স্বামীকে সেনাবাহিনীতে কাজ দেন। বিয়ের পর থেকে স্বামী সন্তান নিয়ে ভাড়া বাসায় ছিলাম। কোনো দিন নিজের বাসা হবে এ যেন ছিল কল্পনা। একদিন জানানো হলো প্রধানমন্ত্রী আমাদের ফ্ল্যাট উপহার দিয়েছেন। আমি যেন বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। এটা ছিল আম্মুর সারপ্রাইজ গিফট। ১৫০০ স্কয়ার ফিটের ফ্ল্যাট, লিফট, গ্যারেজসহ আধুনিক সকল সুযোগ-সুবিধা রয়েছে এখানে। সামনে বাচ্চাদের খেলার মাঠ। এমন বাসায় আগে আর কখনো থাকিনি। এখন স্বামী সন্তানসহ মিরপুর ১৩ নম্বরে আম্মুর দেয়া ফ্ল্যাটেই থাকি আমি। করোনার পর থেকে আম্মুর সঙ্গে সরাসরি আর দেখা হয়নি। কিন্তু ভিডিও কলে কথা হয়েছে। আম্মু আমাদের সব দায়িত্ব পালন করেন।

বিজ্ঞাপন :
আপনি কি অনলাইনে বিজনেস করতে চাচ্ছেন ?

সম্পূর্ণ ফ্রী ! সম্পূর্ণ ফ্রী !! সম্পূর্ণ ফ্রী !!!

পাইকারি বাজারঃ বাংলাদেশে সবচেয়ে বড় অনলাইন পাইকারি বাজার।
অনলাইন পাইকারি বাজারে যে কোন পণ্য ক্রয়-বিক্রয় করতে পারেন।

এখনই ভিসিট করুন পাইকারি বাজার-শুরু করুন অনলাইনে নিজের বিজনেস।
ক্রয়-বিক্রয় সংক্রান্ত যে কোন বিষয়ে আমাদের সাথে কথা বলতে পারেন।
মোবাইলঃ 01623282828-01747707411
ওয়েবসাইটঃ www.wholesalemarket365.com
ফেসবুকঃ পাইকারি বাজার
https://www.facebook.com/groups/506911083157172/

Related posts

দু্ঃস্থ ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক)

গাছ বিক্রি করে হজের স্বপ্ন পূরণ করলেন এক কৃষক

বাংলাদেশ সেনা কল্যাণ সংস্থার পহ্ম থেকে ৭০০ শত পরিবারকে ত্রান সামগ্রী সহায়তা প্রদান করেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।

Leave a Comment

Translate »